ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায়

আপনারা কি ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় শ্যাম্পু সম্পর্কে বা উকুন দূর করার শ্যাম্পুর নাম এবং উকুন দূর করার প্রাকৃতিক উপায় সম্পর্কে জানতে চান? তাহলে আমাদের আজকের এই পোস্টটি আপনাদের জন্য। আজকে আমরা আলোচনা করব মাথার উকুন চিরতরে দূর করার উপায়, উকুন দূর করার ওষুধ এবং ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে।
তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নেই, ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে।

সূচিপত্রঃ ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায়

ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায়

আজকে আমরা একটা পরজীবী প্রাণী নিয়ে আলোচনা করব। যার চুলকানিতে মানুষকে অতিষ্ট করে ফেলে। উকুন হচ্ছে একটা পরজীবী প্রাণী। উকুন মাথার ভেতরে চুলের মধ্যে বাসা বেঁধে থাকে। যার কারণে সারাক্ষণ মাথার মধ্যে চুলকাতে থাকে। এছাড়াও একটা বিরক্তিকর এবং অস্বস্তিকর বিষয়ও রয়েছে। শিশুদের জন্য এটা আরো অনেক বড় ধরনের সমস্যা হয়ে যায়। কেননা ছোটরা বড়দের মতো নিজেদের যত্ন নিজেরা নিতে পারে না। বাবা মার জন্য তখন এটা দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তখন এটা দূর করার জন্য অনেকে অনেক রকম পদ্ধতি খুঁজে বেড়ায়।

আরো পড়ুনঃ শীতকালীন রোগ সমূহ - শীতকালীন রোগ ও প্রতিকার

কি করলে উকুন থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে এরকম চিন্তাভাবনা থাকে তখন। তাই আজকে আমরা নিয়ে আসলাম ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায়। খুব সহজেই আমরা ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় পেতে পারি। ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় হচ্ছে ঘুমানোর আগে ভিনেগারের সাথে সাধারণ তেল মিশিয়ে চুলে ভালো করে লাগিয়ে নিতে হবে। এরপর ঘুম থেকে উঠে সকালবেলা শ্যাম্পু দিয়ে ভালোভাবে চুল পরিষ্কার করে গোসল করে নিতে হবে। এরকম ভাবে সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিনবার মিশ্রণটি ব্যবহার করলে সহজেই ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় পেয়ে যাবেন। এছাড়া ও ভিনেগারের সাথে লবণ মিস করলে উপর দাঁড়ানোর জন্য এটাও খুব কার্যকরী।

উকুন দূর করার প্রাকৃতিক উপায়| মাথার উকুন চিরতরে দূর করার উপায়

একটা বিরক্তিকর সমস্যা হচ্ছে উকুন। মাথার মধ্যে উকুন হলে যখন তখন মাথা চুলকাতেই থাকে, একটা অস্বস্তি মনে হয়। নারীদের চুলের ভাঁজে পুরুষদের তুলনায় উকুন বেশি থাকে। চুলের ভালোভাবে যত্ন নেবার পরও, উপন্যাসক শ্যাম্পু বা সাবান ব্যবহার করলেও দেখা যায় উকুন থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাচ্ছে না। তাই কিছু উকুন দূর করার প্রাকৃতিক উপায় অর্থাৎ এগুলোর মাধ্যমে মাথার উকুন চিরতরে দূর করার উপায় পেতে পারেন। তাহলে চলুন সে সম্পর্কে জেনে আসি-

  • নিমপাতাঃ প্রাকৃতিক উপায়ে নিমপাতা বিভিন্ন রোগের চিকিৎসার ওষুধ। বহু গুন সম্পন্ন এই নিমপাতায় আছে অ্যান্টিফাঙ্গাল, অ্যান্টিডায়বেটিক, অ্যান্টিমাইক্রোবাল, অ্যান্টিসেপটিক, অ্যান্টিপাইরেটিক, অ্যানালেজিক, অ্যান্টিভাইরাস, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া এবং রক্ত বিশুদ্ধকরণ বিভিন্ন উপাদান। উকুন তাড়ানোর জন্য নিম পাতা ব্যবহার করতে পারেন।
  • রসুনের ব্যবহারঃ দশটি রসুনের কোয়া নিয়ে খোসা ছাড়িয়ে ভালোভাবে বেটে নিন। এর সাথে লেবুর রস ২ চামচ মিশিয়ে নিন। ভালোভাবে পেস্ট এর মত করে তৈরি করে মাথার ত্বকের মধ্যে ভালোভাবে ঘষে লাগিয়ে নিতে হবে। কোন অংশ যেন বাদ না যায় সেভাবে খেয়াল রাখতে হবে। এরপর ৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখার পর হালকা গরম পানি দিয়ে চুলটা ধুয়ে নিতে হবে। সপ্তাহে তিন দিনের মত এ পদ্ধতিটি ব্যবহার করলে উকুনের সমস্যা থেকে খুব তাড়াতাড়ি রক্ষা পেয়ে যাবেন।
  • পেঁয়াজের রসঃ উকুন তাড়ানোর জন্য পেঁয়াজের রস ব্যবহার করে দেখতে পারেন। মাথাতে ভালোভাবে পেঁয়াজের রস লাগিয়ে মাসাজ করতে হবে। চুলের গোড়ায় ভালোভাবে লাগিয়ে চুল কিছুক্ষণ ঢেকে রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। তারপর চিরুনি দিয়ে ভালোভাবে চুল আঁচরে নিবেন। এরকম ভাবে সপ্তাহের দুই তিনবার ব্যবহার করলে উকুন দূর হয়ে যাবে।
  • লেবুর রসঃ লেবুর রস হচ্ছে প্রাকৃতিক ভাবে জীবাণু নাশক যা আপনার উকুন দূর করতে সাহায্য করবে। লেবুর রস বের করে মাথায় লাগিয়ে এক ঘন্টা পর চিরুনির সাহায্যে উকুন দূর করুন।
  • লবণ ও ভিনেগারঃ ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় হচ্ছে খুব সহজ। এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ ভিনেগার এবং লবণ নিতে হবে। ভিনেগার এবং লবণের ভালো একটা পেস্ট তৈরি করে মাথাতে লাগিয়ে নিয়ে শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে মাথা দুই ঘন্টা ঢেকে রাখতে হবে। এরপর চুলে ভালোভাবে শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে। এভাবেই ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় খুব সহজ। 

উকুন দূর করার শ্যাম্পুর নাম| উকুন দূর করার উপায় শ্যাম্পু

এখন আমরা মাথার উকুন দূর করার শ্যাম্পুর নাম বা উকুন দূর করার উপায় শ্যাম্পু সম্পর্কে বিস্তারিত জানব। আশা করি যারা সমস্যায় ভুগছেন তারা আমাদের পোস্টটি পড়ে উপকৃত হবেন। মাথার চুল থেকে উকুন দূর করার জন্য একটা বিশেষ শ্যাম্পু হচ্ছে স্কুলি অ্যান্টি উকুন শ্যাম্পু। এতে থাকে পেরোমেথ্রিন। এটা অত্যন্ত কার্যকর একটা শ্যাম্পু যা উকুন এবং বাদাম অপসারণ করতে সাহায্য করে। এটা আপনার মাথার ত্বকে কোনরকম চুলকানি ছাড়াই মাথার ত্বক এবং চুলকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।

এটা আপনার মাথার চুল ও ত্বকের জন্য কার্যকর এবং নিরাপদ। এটা কার্যকর ভাবে প্রমাণিত যে মাথার উকুন এবং উকুনের ডিম নির্মূল করার মূল সূত্র। মাথার চুলের জন্য এটা খুবই মৃদু এবং মাথার ত্বকের জন্য একদম উপযুক্ত। যদি আপনি উকুন সম্পর্কে বিরক্ত হন বা উদ্বিগ্ন হন তাহলে আপনার মাথা এবং চুল থেকে এটা আপনার উকুন সমাধানের জন্য হতে পারে আদর্শ আইটেম।

উকুন দূর করার ওষুধ

উকুন নিয়ে আমরা অনেক আলোচনা করেছি। ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে জেনেছি। এখন আমরা উকুন দূর করার ওষধ সম্পর্কে জানব। বর্তমান বাজারে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে কিন্তু বেশিরভাগ ওষুধে উকুন কিছুটা মরে কিন্তু উকুনের ডিম সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করতে পারে না। যার কারণে ডিম থেকে আবার কিছুদিন পরে নতুন উকুনের জন্ম হয়ে থাকে। এখন আমরা উকুন দূর করার ওষধ এর যে নাম বলবো সেটা একটানা দুই দিন ব্যবহার করলে আপনার মাথা থেকে সম্পূর্ণভাবে উপর শেষ করবে।

আরো পড়ুনঃ জামায়াতে নামাজ না পড়ার শাস্তি

এমনকি উকুনের ডিম ও সম্পূর্ণভাবে নিঃশেষ করবে। এই ওষুধটি আবার বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন নামে পাওয়া যায়। যেহেতু আমরা বাংলাদেশী, সেক্ষেত্রে আপনি বাংলাদেশী হয়ে থাকলে বাজারে গিয়ে Alice or Llcnil নামের এই ওষুধটি কিনতে পারবেন। এছাড়াও যে কোন ফার্মেসিতে গিয়ে ওষুধটি পেয়ে যাবেন। যার দাম ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা নিবে। আশা করি আপনারা উকুন দূর করার ওষুধ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

শেষ কথাঃ ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায়

ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় উকুন দূর করার শ্যাম্পু ও ওষুধ ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের পুরো পোষ্টটি ভালোভাবে পড়ুন, আশা করি সবকিছু ভালোভাবে বুঝতে পারবেন। ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে সবার আগে জানতে হলে আমাদের সাথেই থাকুন।

আজ আর নয়, ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে আপনার কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। আশা করি আমরা আপনার উত্তরটি দিয়ে দেবো। তাহলে আমাদের আজকের এই ভিনেগার দিয়ে উকুন দূর করার উপায় সম্পর্কে পোস্টটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে আপনার ফেসবুক ইন্সটাগ্রাম প্রোফাইলে আমাদের পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন। ধন্যবাদ। ২৩৭৬৬

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url