কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়

কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? এ ধরনের প্রশ্ন অনেকেই করে থাকে। অনেক সময় বিভিন্ন কারণে আমাদের রক্তের প্রয়োজন হয়। সে ক্ষেত্রে রক্ত যোগাড় করতে আমরা অনেক সমস্যার মধ্যে পড়ে যায়। কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? তখন এই প্রশ্নটি অনেক শোনা যায়। আজকের এই আর্টিকেলে কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? তা নিয়ে আলোচনা করব।

তাহলে চলুন দেরি না করে ঝটপট কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? বিষয়টি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। উক্ত বিষয়টি জানতে হলে আপনাকে সম্পূর্ণ আর্টিকেল মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

সূচিপত্রঃ কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়

কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায় - বাংলাদেশে কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়

আমাদের অনেকের শরীরে একই ধরনের রক্ত চলাচল করে। আমরা জানি আমাদের রক্তের ধরকে কয়েকটি গ্রুপে ভাগ করা হয়। আমাদের সাধারণ জ্ঞান হিসেবে বাংলাদেশে কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? এ বিষয় সম্পর্কে জানা উচিত। বাংলাদেশে অসংখ্য ব্যক্তি প্রতিনিয়ত রোগীদের বাঁচানোর জন্য রক্ত দান করে থাকে। কোন রক্ত সহজেই পাওয়া যায় আবার কোন রক্ত সহজে পাওয়া যায় না।

আরো পড়ুনঃ হাত পা ঠান্ডা হয়ে যায় কেন - জ্বর হলে হাত পা ঠান্ডা হয় কেন

এবি রক্তের গ্রুপ খুব কম মানুষের মধ্যে পাওয়া যায়। সাধারণত এই রক্তের গ্রুপকে দামি রক্ত হিসেবে বিবেচনা করা হয়। যাদের এবি গ্রুপের রক্ত রয়েছে তাদের বেশি করে ফলমূল এবং শাকসবজি খাওয়া উচিত। এই রক্তের গ্রুপের মানুষের জন্য ডিম খুবই উপকারী। এবি ব্লাড গ্রুপ একমাত্র ব্লাড গ্রুপ যার মধ্যে সব কয়টা অ্যান্টিজেন উপস্থিত থাকে কিন্তু কোন অ্যান্টিবডি থাকে না।

সারাবিশ্বে বিরলতম রক্তের গ্রুপ গুলোর মধ্যে অন্যতম হলো এবি পজেটিভ। সারা বিশ্বের মাত্র ৩ শতাংশ মানুষের দেহে এই শ্রেণীর রক্ত পাওয়া যায়। সাধারণত এবি পজেটিভ ধারণকারী মানুষদেরকে দামি মানুষের হিসাবে বিবেচনা করা হয়। কারণ এই রক্ত সহজে পাওয়া যায় না। আশা করি বাংলাদেশে কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? বিষয়টি জানতে পেরেছেন।

কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে ভালো

আমাদের প্রত্যেকের শরীরে কোন না কোন গ্রুপের রক্ত প্রবাহিত হচ্ছে। আমরা অনেকেই কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে ভালো? এই ধরনের প্রশ্ন করে থাকি। প্রতিটি রক্তের গ্রুপ ভালো কিন্তু এর মধ্যে কিছু রক্তের গ্রুপ রয়েছে এগুলো অন্যান্য রক্তের তুলনায় একটু বেশি উন্নত মানের এবং ভালো হয়ে থাকে। কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে ভালো? উল্লেখ করা হলো।

আমরা সচরাচর বি পজেটিভ রক্তের গ্রুপ অনেক পেয়ে থাকি। আমাদের দেশে বেশিরভাগ মানুষের শরীরে মনে হয় বি পজেটিভ রক্তের গ্রুপ রয়েছে। বি পজেটিভ রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে ভালো। এটা আমাদের কথা না এটা হলো বিশেষজ্ঞদের কথা। আপনি জেনে রাখুন বি পজেটিভ রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে ভালো রক্তের গ্রুপ।

কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে দামি

রক্ত কখনও কেনাবেচা করা যায় না। রক্ত দেওয়া একজন মানুষের দায়িত্ব এবং কর্তব্য। আমরা অনেক সময় মুমূর্ষ রোগীদের জন্য রক্ত দিয়ে থাকি। ধর্মীয় দিক বিবেচনা করলে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং নেকির কাজ। কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে দামি? এই ধরনের প্রশ্ন অনেক শোনা যায়। যেহেতু সকল রক্তের গ্রুপ গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে দামি তা জানা উচিত।

অনেকেই হয়তো বলবেন দামি রক্তের গ্রুপের মধ্যে রয়েছে ও নেগেটিভ, বি নেগেটিভ অথবা এবি নেগেটিভ। কিন্তু এর মধ্যে একটিও সত্য নয়। পৃথিবীর সবচেয়ে দুর্লভ ও দামি রক্তের গ্রুপ হল বোম্বাই রক্তের গ্রুপ। ১৯৫২ সালে মুম্বাই শহরের একটি হাসপাতালে একটি রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিলেন তার রক্ত পরীক্ষা করে দেখেন তার রক্ত সবার থেকে আলাদা। সাধারণ ব্লাড গ্রুপের সাথে তার রক্তের গ্রুপ মিলেনা।

তারপরে অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পর জানা গেল এটি একটি নতুন ব্লাড গ্রুপ। যেহেতু তৎকালীন ওই শহরের নাম ছিল বোম্বাই তাই রক্তের গ্রুপের নামকরণ করা হয়েছিল বোম্বাই ব্রান্ড গ্রুপ। এটি পৃথিবীতে এতটাই এবং দামি যে ১০ লাখ মানুষের মধ্যে মাত্র চারজনের পাওয়া যেতে পারে। তাহলে আশা করি কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে দামি বিষয়টি জানতে পেরেছেন।

কোন রক্তের গ্রুপ কত শতাংশ

কোন রক্তের গ্রুপ কত শতাংশ বিষয়টি সম্পর্কে অনেকেই জানতে চাই। আমরা অনেকেই আমাদের রক্তের গ্রুপ কি? তা জানিনা। কিন্তু এই বিষয়টি সম্পর্কে জানা অনেক গুরুত্বপূর্ণ কারণ কখন এর প্রয়োজন হয় আমরা কেউ জানিনা। কোন রক্তের গ্রুপ কত শতাংশ তা নিচে উল্লেখ করা হলো।

আরো পড়ুনঃ শীতকালীন রোগ সমূহ - শীতকালীন রোগ ও প্রতিকার

ক্তের গ্রুপের শতকরা হারের রয়েছে ভিন্নতা। পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে ভিন্ন গ্রুপের রয়েছে প্রাধান্য। তবে এই প্রাথক্য খুব বেশি নয়। নিম্নের পরিসংখ্যানটি যুক্তরাষ্ট্রের জনগনের রক্তের শতকরা হার।

১। O পজেটিভ 38.4%

২। O নেগেটিভ 7.7%

৩। B পজেটিভ 9.4%

৪। B নেগেটিভ1.7%

৫। A নেগেটিভ 6.5%

৬। A পজেটিভ 32.3%

৭। AB পজেটিভ 3.2%

৮। AB নেগেটিভ 0.7%

বাংলাদেশে রক্তের গ্রুপের অনুপাত

আমাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা নিজের ইচ্ছাই রক্ত দান করে থাকে। রক্ত দান করা খুবই মহৎ একটি কাজ। এতে একটি রোগীর জীবন বেঁচে যায়। আমরা অনেকেই বাংলাদেশে রক্তের গ্রুপের অনুপাত জানতে চায়। বাংলাদেশে বিভিন্ন রক্তের গ্রুপের মানুষ বসবাস করে। কারো সাথে কারো রক্তের গ্রুপের মিল রয়েছে আবার কারো মিল নেই। বাংলাদেশে রক্তের গ্রুপের অনুপাত নিতে উল্লেখ করা হলো।

  • ও পজেটিভ -- ২৯.২১%
  • ও নেগেটিভ -- ০.৫৩%
  • এ পজেটিভ -- ২৬.৩%
  • এ নেগেটিভ -- ০.৪৮%
  • বি পজেটিভ -- ৩৩.১২%
  • বি নেগেটিভ -- ০.৬%
  • এবি পজেটিভ -- ৯.৫৯%
  • এবি নেগেটিভ -- ০.১৭%

কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়

অনেক সময় জরুরি প্রয়োজনে আমাদের রক্তের গ্রুপ পাওয়া যায় না। আমরা যদি কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়? তথ্যগুলো জেনে রাখতে পারি তাহলে খুব সহজেই রক্ত প্রয়োজন হলে সে সম্পর্কে একটা ধারণা পেয়ে যাব। তাই আমাদেরকে কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়? বিষয়গুলো জানতে হবে।

আরো পড়ুনঃ জামায়াতে নামাজ না পড়ার শাস্তি

ও গ্রুপের রক্ত আমাদের পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি। এ গ্রুপের রক্ত এই তালিকায় দ্বিতীয় তারপরে বি গ্রুপের রক্ত। আমরা যেকোনো সময় ও গ্রুপের রক্ত পেয়ে যাব। সাধারণত ও গ্রুপের রক্ত সব থেকে বেশি পাওয়া যায়।

আমাদের শেষ কথাঃ কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলে, কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়? বাংলাদেশে রক্তের গ্রুপের অনুপাত, কোন রক্তের গ্রুপ কত শতাংশ? কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে দামি? কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে ভালো? বাংলাদেশে কোন রক্তের গ্রুপ সবচেয়ে কম পাওয়া যায়? এ বিষয়গুলো বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে আশা করি উত্তর বিষয়গুলো জানতে পেরেছেন। যদি না পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে উক্ত বিষয়গুলো জেনে নিন ধন্যবাদ। ২০৭৯১

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url