সালাতুল তাসবিহ - সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত

সালাতুল তাসবিহ কি? এই বিষয়টি সম্পর্কে আজকে আলোচনা করা হবে। আমরা অনেকেই সালাতুল তাসবিহ সম্পর্কে কোন ধারণা রাখি না। আপনি যদি সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত এবং কিভাবে পড়তে হয় জানতে চান তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তাহলে চলুন দেরি না করে ঝটপট সালাতুল তাসবিহ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক। উক্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি জানতে হলে আপনাকে সম্পূর্ণ আর্টিকেল শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে হবে।

সূচিপত্রঃ সালাতুল তাসবিহ - সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত

ভূমিকাঃ সালাতুল তাসবিহ - সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত

সালাতুল তাসবিহ সাধারণত তাসবিহের নামাজ নামে পরিচিত। আমরা অনেকেই সালাতুল তাসবিহ সম্পর্কে কোন ধারণা রাখি না। ইসলামের নিয়ম অনুযায়ী এটি একটি ঐচ্ছিক ইবাদত। এটি বাধ্যতামূলক নয়। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত, সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ম, সালাতুল তাসবিহ কিভাবে পড়তে হয় এই বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

সালাতুল তাসবিহ

সালাতুল তাসবিহ সাধারণত তাসবিহের নামাজও নামে পরিচিত। সালাত শব্দের অর্থ নামাজ আর তাসবিহ শব্দের অর্থ সুবহানাল্লাহ, ওয়াল হামদুলিল্লাহ, ওয়ালা ইলাহা ইল্লাল্লাহু, ওয়াল্লাহু আকবর এই শব্দগুলো বোঝানো হয়েছে। যে নামাজের এসব তাসবিহ পড়তে হয় সেই নামাজকেই সালাতুল তাসবিহ বলা হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃশীতকালীন রোগ সমূহ - শীতকালীন রোগ ও প্রতিকার

ইসলাম ধর্ম যারা পালন করে তাদের জন্য এটি একটি ঐচ্ছিক ইবাদত। আপনার যদি ইচ্ছা হয় তাহলে এই ইবাদতটি পালন করতে পারেন এখানে অনেক সওয়াব পাওয়া যায়। আবার আপনি যদি এই ইবাদতটি পালন করতে না চান তাহলে কোন ধরনের গুনহা হবে না। যেমন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সবার জন্য বাধ্যতামূলক এটা তেমন নয়।

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাঃ তার উম্মতকে এই নামাজ আদায় করার জন্য উৎসাহ দিয়েছেন। জীবনে একবার হলেও মুসলমানরা যেন এই নামাজ আদায় করে এ বিষয়ে গুরুত্বরোপ করেছেন। তাহলে আমরা আজ বুঝতে পারলাম যে সালাতুল তাসবিহ নামাজের গুরুত্ব রয়েছে অনেক।

সালাতুল তাসবিহ কিভাবে পড়তে হয়?

কিন্তু অনেকে প্রশ্ন করে থাকে সালাতুল তাসবিহ কিভাবে পড়তে হয়? এই নামাজ কত রাকাত? আপনাদের সুবিধার্থে বলে রাখি যে সালাতুল তাসবিহ চার রাকাত। এই নামাজের প্রতি রাকাতে "সুবহানাল্লাহ, ওয়াল হামদুলিল্লাহ, ওয়ালা ইলাহা ইল্লাল্লাহু, ওয়াল্লাহু আকবর" এই তাসবীহগুলো ৭৫ বার পড়তে হয়। চার রাকাতে মোট ৩০০ বার পড়তে হয়।

১। সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত করতে হবে। এরপরে প্রথম রাকাতে সানা পড়ার পরে ১৫ বার পড়তে হবে "সুবহানাল্লাহ, ওয়াল হামদুলিল্লাহ, ওয়ালা ইলাহা ইল্লাল্লাহু, ওয়াল্লাহু আকবর" তারপর সূরা ফাতিহা তারপর কোরআন থেকে কেরাত পাঠ সম্পন্ন করতে হবে।

২। এরপরে রুকুতে যাওয়ার পূর্বে ১০ বার উপরে উল্লেখিত বাক্য গুলো পাঠ করতে হবে।

৩। রুকু করবে এবং রুকু অবস্থায় দোয়ার পরে ১০ বার তাসবীহগুলো পাঠ করতে হবে।

৪। রুকুর থেকে মাথা উঠানোর পরে সোজা হয়ে দাঁড়ানো অবস্থায় উক্ত তাসবিহগুলো ১০ বার পড়তে হবে।

৫। এরপরে সিজদায় দেয়া যাবে এবং সিজদা অবস্থায় উক্ত তাসবীহগুলো ১০ বার পাঠ করতে হবে।

৬। সিজদা থেকে মাথা উঠানোর পরে উক্ত তাসবীহগুলো আবার ১০ বার পাঠ করতে হবে।

৭। পুনরায় সিজদায় গিয়ে আবার দশ বার উল্লেখিত তাসবিহ গুলো পাঠ করতে হবে।

৮। সিজদা থেকে মাথা উঠিয়ে আবার দ্বিতীয় রাকাতে একইভাবে তাসবীহগুলোকে পাঠ করতে হবে।

সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ম

নফল নামাজ গুলোর মধ্যে অন্যতম নামাজ হলো সালাতুল তাসবিহ। সালাতুল তাসবিহ নামাজের ফজিলত এর মধ্যে অন্যতম হলো বিগত জীবনের গুনাহ গুলো মাফ হওয়া এবং বিপুল পরিমাণে সওয়াব লাভ। এর জন্য আমাদেরকে সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত সম্পর্কে জানতে হবে।

আরো পড়ুনঃ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

সালাতুল তাসবিহ নামাজের প্রতি রাকাতে ৭৫ বার করে তাসবিহ পাঠ করতে হবে। চার রাকাতে মোট ৩০০ বার তাসবিহ গুলোকে পাঠ করতে হবে। আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাঃ আব্বাস ইবনে আব্দুল মুত্তালিব রাঃ কে বলেছেন-

হে চাচা! আমি কি আপনাকে দেব না? আমি কি আপনাকে প্রদান করব না? আপনি চার রাকাত নামাজ পড়বেন। প্রতি রাকাতে সূরা ফাতেহা ও অন্য একটি সূরা পড়বেন। প্রথম রাকাতে যখন কি রাত শেষ করবেন তখন দাঁড়ানো থাকা অবস্থায় ১৫ বার বলবেন-

"সুবহানাল্লাহ, ওয়াল হামদুলিল্লাহ, ওয়ালা ইলাহা ইল্লাল্লাহু, ওয়াল্লাহু আকবর"

এরপরে রুকুতে যাওয়ার পূর্বে ১০ বার উপরে উল্লেখিত বাক্য গুলো পাঠ করতে হবে। রুকু করবে এবং রুকু অবস্থায় দোয়ার পরে ১০ বার তাসবীহগুলো পাঠ করতে হবে। রুকুর থেকে মাথা উঠানোর পরে সোজা হয়ে দাঁড়ানো অবস্থায় উক্ত তাসবিহগুলো ১০ বার পড়তে হবে। সিজদায় দেয়া যাবে এবং সিজদা অবস্থায় উক্ত তাসবীহগুলো ১০ বার পাঠ করতে হবে।

সিজদা থেকে মাথা উঠানোর পরে উক্ত তাসবীহগুলো আবার ১০ বার পাঠ করতে হবে। পুনরায় সিজদায় গিয়ে আবার দশ বার উল্লেখিত তাসবিহ গুলো পাঠ করতে হবে। সিজদা থেকে মাথা উঠিয়ে আবার দ্বিতীয় রাকাতে একইভাবে তাসবীহগুলোকে পাঠ করতে হবে।

সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত

আমরা অনেকে সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত সম্পর্কে জানি না। নিয়ত করা হলো অন্তরের একটি বিষয়। নিয়ত যে মুখে করতে হবে এমন কোন কথা নেই। যেহেতু আল্লাহ তাআলা অন্তত জামি আপনার অন্তরের কথা আল্লাহ তাআলা ঠিকই জানেন। সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত করার জন্য মনে মনে করতে পারেন।

বাংলা উচ্চারণঃ নাওয়াইতু আন উসালিলয়া লিল্লাহি তাআলা আরবা'আ রাকা'আতাই সালাতিল সালাতুল-তাসবী সুন্নাতু রাসূলিল্লাহি তা'আলা মুতাওয়াজ্জিহান ইলাজিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

বাংলা অর্থঃ আমি সালাতুল তাসবিহ চার রাকাত সুন্নত নামাজ আদায় করার উদ্দেশ্যে কিবলামুখী হয়ে নিয়ত করলাম আল্লাহু আকবার।

আমাদের শেষ কথাঃ সালাতুল তাসবিহ - সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলে সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত, সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ম, সালাতুল তাসবিহ কিভাবে পড়তে হয়? এ বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি সালাতুল তাসবিহ নামাজ সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে অবশ্যই আজকের এই আর্টিকেল থেকে উক্ত বিষয়টি সম্পর্কে জেনে নিন।

আরো পড়ুনঃ জামায়াতে নামাজ না পড়ার শাস্তি

আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে আশা করি উক্ত বিষয়টি সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। যদি না পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে নিন ধন্যবাদ। ২০৭৯১

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url